SHARE

ডেভেলাপারদের নিয়ে মার্কিন প্রযুক্তি পণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠান অ্যাপলের সবচেয়ে বড় সম্মেলন ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ডেভেলাপার্স কনফারেন্স (ডব্লিউডব্লিউডিসি)-এর এবারের আসররে এই অ্যাপ উন্মোচন করা হয়। এর প্রেক্ষিতে, ২০১৪ সালে প্রথম চালু করা প্রোগ্রামিং ভাষা সুইফট নিয়ে অ্যাপলের বড় কোনো পরিকল্পনা আছে বলে ধারণা করছে ব্যবসা-বাণিজ্যবিষয়ক সাইট বিজনেস ইনসাইডার।

সুইফট ইতোমধ্যেই বড় সাফল্য পেয়েছে। টুইটার, উবার আর লিফটসহ এক লাখেরও বেশি অ্যাপ অল্পকিছু হলেও কোড নির্মাণের জন্য সুইফট ব্যবহার শুরু করেছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আর ক্লাসরুম থেকে সুইফটের জন্য ‘ভালোবাসা’ পাওয়ার পর, এই গতি ধরে রাখতে শিশু-কিশোর আর প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য আইফোন আর আইপ্যাডে ‘সুইফট প্লেগ্রাউন্ডস’ নামের এই অ্যাপ বের করেছে অ্যাপল। অ্যাপটি সুইফট দিয়ে কীভাবে কোড করতে হয় তা শেখাবে। অ্যাপল প্রধান টিম কুক বলেন, “আমরা মনে করি, সবাইকে কোডিং করতে শেখানোর এটাই সবচেয়ে ভালো উপায়। আমরা মনে করি, সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের একটি আবশ্যক ভাষা হওয়া উচিত কোডিং।”

অ্যাপল একটি অন-স্টেজ ডেমোর মাধ্যমে সুইফট প্লেগ্রাউন্ডস-এর সহজ ‘ইমোজি জমা করার’ খেলার মতো কিছু অনুশীলন প্রদর্শন করে। অ্যাপটি ব্যবহারকারীকে ওজন আর মাধ্যাকর্ষণ সমন্বয় করার জন্য তাড়া দেয়, যা দেখায় কীভাবে কোডে পরিবর্তন আনলে খেলায় পরিবর্তন আসে। সুইফটে সবসময় ব্যবহার করা সিম্বল আর ফাংশনসহ সুইফট প্লেগ্রাউন্ডস-এ একটি কাস্টমাইজড কিবোর্ড আছে, যা শেখার পদ্ধতি সহজ করবে।

এটি ভালভাবেই অ্যাপলের ‘ব্রডার আম্বিশনস ফর সুইফট’-এর সঙ্গে মিলে যায়। অ্যাপল সুইফটকে ‘আগামী ২০ বছরের প্রধান প্রোগ্রামিং ভাষা’ হিসেবে দেখছে। যতবেশি শিশু-কিশোর সুইফট দিয়ে প্রোগ্রামিং করবে ততবেশি জায়গায় সুইফট ছড়িয়ে পড়বে। অ্যাপল ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ডেভলাপারস কনফারেন্স-এ দর্শকদের কাছ থেকে ভালোই উৎসাহ পেয়েছিল খবরটি। দর্শকদের মাঝে ৩৫০জন ডেভলাপার শিক্ষার্থী অ্যাপল দ্বারা নিবন্ধিত স্কলারশিপের জন্য উপস্থিত ছিলেন।

আজ থেকে সুইফট প্লেগ্রাউন্ডস ডেভলাপারদের জন্য ‘প্রিভিউ’ রূপে পাওয়া যাচ্ছে। জুলাই থেকে এটা ‘পাবলিক বেটা’ হিসেবে পাওয়া যাবে আর ২০১৬ সালে বাজারে আসতে যাওয়া আইওএস ১০-এর সঙ্গে আইফোন ও আইপ্যাডের অ্যাপ স্টোরে পাওয়া যাবে এটি।

অনুষ্ঠানে কুক জানান, “অ্যাপলের অ্যাপ স্টোরে বর্তমানে ২০ লাখেরও বেশি অ্যাপ রয়েছে, যেগুলো ১৩ হাজার কোটিবার ডাউনলোড করা হয়েছে। এর মাধ্যমে ডেভলাপারদের আয় হয়েছে পাঁচ হাজার কোটি ডলার।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here