SHARE

আগামী বাজেটে দেশের শিল্প খাতে ব্যবহৃত বিদ্যুতের দাম কমিয়ে নতুন নীতিমালা প্রণয়নের প্রস্তাব করেছে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই।

আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীর সোনারগাঁ হোটেলে অনুষ্ঠিত জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের পরামর্শক কমিটির ৩৭তম সভায় এফবিসিসিআইয়ের পক্ষ থেকে এ প্রস্তাব দেন সংগঠনটির সভাপতি আবদুল মাতলুব আহমাদ।

২০১৬-১৭ অর্থবছরের বাজেট প্রস্তাবনা গ্রহণে দেশের বিভিন্ন সংগঠনের সঙ্গে ধারাবাহিক আলোচনার অংশ হিসেবে আজ ৩০টি সংগঠনের মতামত নেওয়া হয়। এসব সংগঠনের মধ্যে নারী উদ্যোক্তা, স্বর্ণ ব্যবসায়ী, পাথর, রড, চশমা, শিশুখাদ্য আমদানিকারক, কম্পিউটার ব্যবসায়ী সমিতি, দোকান মালিক সমিতির বাজেট প্রস্তাবনা নেওয়া হয়।

অনুষ্ঠানে এফবিসিসিআই সভাপতি আবদুল মাতলুব আহমাদ বলেন, ‘লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী ২০২০ সালের মধ্যে ৮ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন হবে। এ লক্ষ্যে জিডিপি ৩৪ দশমিক ৪ শতাংশ বিনিয়োগ নিশ্চিত করতে হলে সরকারি ও বেসরকারি খাতে বিনিয়োগ বাড়াতে হবে।  এ ছাড়া কর্মসংস্থান ও বিনিয়োগ সৃষ্টির স্বার্থে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের উন্নয়নে বিশেষ নজর দিতে হবে। তা ছাড়া নারী উদ্যোক্তা উন্নয়ন ও সম্প্রসারণের ক্ষেত্রে বাজেটে বিশেষ লক্ষ্য রাখা জরুরি।’

উৎপাদনশীল খাতে বিদ্যুতের দাম কমানোর বিষয়ে মাতলুব বলেন, ‘দেশের সুদৃঢ় অর্থনৈতিক উন্নয়নে বিদ্যুৎ ও জ্বালানির ভূমিকা অপরিসীম। শিল্পায়নের জন্য নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ করতে হবে। এ জন্য শিল্প খাতে বিদ্যুতের দর কমিয়ে ইউনিট প্রতি ৫-৬ টাকা টাকা নির্ধারণ করা যেতে পারে।’

‘জ্বালানি তেলের দর কমানো হলে তা যেন শিল্পের উৎপাদন খরচ কমাতে সহায়ক হয়। একদিকে জ্বালানি তেলের মূল্য কমিয়ে অন্যদিকে বিদ্যুৎ ও গ্যাসের দর বাড়ালে তা কোনোভাবেই শিল্পের জন্য সহায়ক হবে না। ’

এফবিসিসিআই সভাপতি বলেন, সরকারের সহযোগিতা বাড়িয়ে পুরোনো বন্ধ রেন্টাল পাওয়ার প্ল্যান্টগুলো পিপিপির আওতায় পুনরায় চালু করতে হবে। বিদ্যুতের উৎপাদন বাড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে দেশব্যাপী এর সঞ্চালন সক্ষমতা বাড়ানো ও উৎপাদনশীল খাতে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করতে হবে।

অনুষ্ঠানে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনআরবি) চেয়ারম্যান নজিবুর রহমান বলেন, ‘রাজস্ব আদায়ে এনবিআর জিরো টলারেন্স নীতি অনুসরণ করছে। এ ক্ষেত্রে কোনো রকমের অনিয়ম কাম্য নয়। আমরা ব্যবসায়ীদের সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক স্থাপন করতে চাই।’

দেশের স্বার্থের কথা উল্লেখ করে ব্যবসায়ীদের উদ্দেশে নজিবুর রহমান বলেন, ‘এ ক্ষেত্রে আপনাদের আরো করবান্ধব হতে হবে।  মনে রাখতে হবে আমাদের কাছ থেকে টাকা নিয়ে সরকার দেশের জন্যই কাজ করছে। ব্যবসায়ীরা কর প্রদানে যাতে কোনো রকমের হয়রানির শিকার না হয়, সেদিকেও এনবিআর নজর রাখবে।’

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের পরামর্শক কমিটির সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, বিশেষ অতিথি ছিলেন অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান, এফবিসিসিআইয়ের নেতারাসহ দেশের শীর্ষস্থানীয় ব্যবসায়ীরা।

Comments

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here