ঢাকা দক্ষিণে ৫০ স্থানে ফ্রি ওয়াই-ফাই: সাঈদ খোকন

    663
    0
    SHARE

    ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ৫০টি গুরুত্বপূর্ণ স্থানে ফ্রি ওয়াই-ফাই জোন করার ঘোষণা দিয়েছেন মেয়র সাঈদ খোকন। এসব স্থানে ওয়াই-ফাই চালু করতে কোনো পাসওয়ার্ড প্রয়োজন হবে না। ওয়াই-ফাই জোন করার অংশ হিসেবে মেয়র আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে লালবাগ কেল্লায় এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।

    ডিএসসিসি ও বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশনস কোম্পানি লিমিটেড (বিটিসিএল) যৌথভাবে এই ফ্রি ওয়াই-ফাই চালু করছে।
    এই উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ডিএসসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা খান মোহাম্মদ বিলাল, বিটিসিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফকরুদ্দিন আহমদ, ওয়ার্ড কাউন্সিলর দেলোয়ার হোসেন, হুমায়ুন কবির, হাসিবুর রহমান ও মোশাররফ হোসেন প্রমুখ।
    ফ্রি ওয়াই-ফাইয়ের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সাঈদ খোকন বলেন, পর্যায়ক্রমে ডিএসসিসির প্রত্যেকটি গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনায় ফ্রি ওয়াই-ফাই চালু করা হবে। তিনি বলেন, ‘আশা করি ছয় মাসের মধ্যে সম্পন্ন করতে পারব।’
    সাঈদ খোকন জানান, যেসব স্থানে ফ্রি ওয়াই-ফাই করা হচ্ছে সেগুলো হলো: বঙ্গবন্ধু জাদুঘর, বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউ, রাসেল স্কয়ার, কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার, অপরাজেয় বাংলা, আহসান মঞ্জিল, লালবাগ কেল্লা, কার্জন হল, কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন, বাহাদুর শাহ পার্ক, ওসমানী উদ্যান, রমনা পার্ক, বলধা গার্ডেন, কেন্দ্রীয় শিশু পার্ক, ধানমন্ডি লেক, মহানগর নাট্যমঞ্চ, সায়েন্স অ্যানেক্স ভবন, নগর ভবন, ডিএসসিসি জোন-২, জোন-৩, জোন-৫, সায়েদাবাদ বাস টার্মিনাল, ফুলবাড়িয়া বাস টার্মিনাল, সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনাল, ঢাকা মহানগর জেনারেল হাসপাতাল, ঢাকা মহানগর শিশু হাসপাতাল, নাজিরা বাজার মাতৃসদন, নিউমার্কেট, মেয়র মোহাম্মদ হানিফ কমিউনিটি সেন্টার, সেগুনবাগিচা কমিউনিটি সেন্টার, ধানমন্ডি ভূতের গলি কমিউনিটি সেন্টার, বাসাবো কমিউনিটি সেন্টার, কাজী বশির মিলনায়তন, পল্টন কমিউনিটি সেন্টার, নবাবগঞ্জ সাত শহীদ কমিউনিটি সেন্টার, হাজী গোলাম মোর্শেদ কমিউনিটি সেন্টার, হাজী খলিল সরদার কমিউনিটি সেন্টার, আজিমপুর মিনি কমিউনিটি সেন্টার, হাজী জুম্মন কমিউনিটি সেন্টার, ফজলুল করিম কমিউনিটি সেন্টার, নর্থ ব্রুক হল লাইব্রেরি, বীর মুক্তিযোদ্ধা সাদেক হোসেন খোকা কমিউনিটি সেন্টার, মাজেদ সরদার কমিউনিটি সেন্টার, সূত্রাপুর কমিউনিটি সেন্টার, ধলপুর কমিউনিটি সেন্টার, ফকিরচাঁদ কমিউনিটি সেন্টার, শরাফতগঞ্জ কমিউনিটি সেন্টার, যাত্রাবাড়ী কমিউনিটি সেন্টার এবং জহির রায়হান সংস্কৃতি কেন্দ্র।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here