SHARE
গ্র্যামি থেকে নিমন্ত্রণ এল জায়েদের কাছে
গ্র্যামি থেকে নিমন্ত্রণ এল জায়েদের কাছে

জায়েদ হাসানের কথা মনে আছে নিশ্চয়ই! গত বছরের অক্টোবরে বাংলাদেশের জায়েদ গিয়েছিলেন বিশ্বখ্যাত গানের দল লিনকিন পার্কের যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলেসের স্টুডিওতে (রেডবুল স্টুডিও)। সেখানে দিনভর ব্যান্ডের সদস্যদের সঙ্গে সময় কাটান বাংলাদেশের এই তরুণ মিউজিক কম্পোজার। সেই যাত্রার পর তিনি যাচ্ছেন গ্র্যামিতে।
হ্যাঁ, জায়েদ আগামী গ্র্যামি পুরস্কারের আসরে যাচ্ছেন। টিকিট কিনে কিংবা পৃষ্ঠপোষকের সহায়তায় নয়, নিজের গান আনুষ্ঠানিকভাবে প্রতিযোগিতার জন্য জমা দিয়ে একজন অংশগ্রহণকারী হিসেবে তিনি পেয়েছেন গ্র্যামির নিমন্ত্রণ।
আগামী ১২ ফেব্রুয়ারি বসছে গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ডের ৫৯তম আসর। এবারের গ্র্যামি পুরস্কারের জন্য অনেক আগে থেকেই শুরু হয়েছে গান জমা দেওয়ার প্রক্রিয়া। বাংলাদেশের জায়েদও গ্র্যামি একাডেমির সদস্য হওয়ায় তাঁর ছয়টি ট্র্যাক জমা দিয়েছিলেন এবারের প্রতিযোগিতা বিভাগে। প্রথম দফায় (ফার্স্ট ব্যালট-প্রক্রিয়া বলা হয়) সাত হাজার ট্র্যাকের মধ্য থেকে মনোনয়নের দৌড়ে পাঁচ হাজার ট্র্যাক বাছাই করা হয়। বাছাইকৃত সেই ট্র্যাকের মধ্যে জায়েদের পাঁচটি ট্র্যাকই আছে। ৭ ডিসেম্বর জানা যাবে ৫৯তম গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ডের চূড়ান্ত মনোনয়ন। পাঁচ হাজার থেকে ছাঁটাই করে তিনটি ট্র্যাক চূড়ান্ত মনোনয়নের তালিকায় স্থান করে নেবে।
তবে চূড়ান্ত মনোনয়নের আগে ফার্স্ট ব্যালটে স্থান করে নেওয়া ট্র্যাকের শিল্পীদের কাছে বিশেষ নিমন্ত্রণপত্র পাঠান গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ডের আয়োজকেরা। তাই নির্বাচিত শিল্পী হিসেবে গ্র্যামি থেকে নিমন্ত্রণ এসেছে জায়েদের নামেও। তাঁর এই নিমন্ত্রণপত্রের ব্যাপারে জানতে যোগাযোগ করা হয় জায়েদের সঙ্গে। দারুণ উচ্ছ্বসিত তরুণ এই সংগীতশিল্পী বলেন, ‘দারুণ রোমাঞ্চকর অনুভূতি। দর্শক হিসেবে নয়, আমন্ত্রিত অতিথিদের একজন হয়ে যাব গ্র্যামি আসরে। তবে চূড়ান্ত মনোনয়নে যদি নাম থাকে, তাহলে রোমাঞ্চ বেড়ে যাবে আরও কয়েক গুণ।’
নিজের জমা দেওয়া গানগুলো নিয়ে জায়েদ হাসান বলেন, ‘মনোনয়নের জন্য জমা দেওয়া “সেলিং থ্রু দ্য ক্লাউডস” গানটির প্রশংসা করেছেন গ্র্যামি বোর্ড মেম্বারদের অনেকে। তবে আমার মনে হয়, এই দফায় গ্র্যামি জেতা হবে না। যে কাজ নিয়ে উচ্চকিত প্রশংসা হয়, আমার বিশ্বাস, তা চূড়ান্ত লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারে না। তবে আমি আশাবাদী। এটা তো সবে শুরু। ২০২৬ নাগাদ আমাদের দেশে গ্র্যামি পুরস্কার আসবেই।’
সবার জন্য বলে রাখি, সংগীত দুনিয়ার সবচেয়ে সম্মানজনক পুরস্কারের আসর হচ্ছে গ্র্যামি। বিশ্বের প্রত্যেক সংগীত তারকার জন্য গ্র্যামির আসর হলো স্বপ্নের মঞ্চ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here