SHARE
ভাল খবর , ভালখবর.কম , valokhobor .com, valo khobor
ভাল খবর , ভালখবর.কম , valokhobor .com, valo khobor

১৩২ বছরের ইতিহাসে প্রথমবারের মত ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগের শিরোপা ঘরে তুলেছে লিস্টার সিটি। সোমবার চেলসির সাথে টটেনহ্যাম হটস্পার ২-২ গোলে ড্র করার সাথে সাথে লিস্টারের শিরোপা নিশ্চিত হয়।
ম্যাচটি উপভোগের জন্য লিস্টারের খেলোয়াড়রা দলের তারকা স্ট্রাইকার জেমি ভার্দির বাসায় উপস্থিত হয়েছিলেন। বিরতির আগেই স্পারসরা ২-০ গোলে এগিয়ে গেলেও তখনো ম্যাচের নাটকীয়তা পুরোটাই বাকি ছিল। গ্যারি কাহিল ও বদলী হিসেবে মাঠে নামা ইডেন হ্যাজার্ডের গোলে চেলসি শুধু ম্যাচে সমতাই ফেরায়নি, পেশাদার ফুটবলে অন্যতম অসাধারণ একটি ইতিহাসেরও জন্ম দিয়েছে। নতুন চ্যাম্পিয়ন লিস্টারকে নিয়ে সেই ইতিহাস যে শুধুমাত্র সমৃদ্ধই হয়েছে।
ম্যাচটি শেষে টুইটারে সতীর্থদের সাথে উল্লাসরত একটি ভিডিও বার্তা পোস্ট করেছেন ভার্দি। সেখানে তিনি বলেছেন, ‘এটা অবিশ্বাস্য এক অনুভূতি। আমি কখনই এই অনুভূতির কথা জানতাম না। গত মৌসুমে আমরা লীগ থেকে বাদই পড়ে গিয়েছিলাম। আর শনিবার আমরা শিরোপা হাতে নিব। অসাধারণ একটি ক্লাবের ইতিহাসে এটাই সবচেয়ে বড় অর্জন। এর অংশ হতে পেরে আমরা সবাই গর্বিত।’
শনিবার এভারটনের বিপক্ষে ঘরের মাঠ কিং পাওয়ার স্টেডিয়ামে ম্যাচের পরেই প্রিমিয়ার লীগে শিরোপা হাতে তুলে নিবে ক্লডিও রানেইরির দল। মাত্র এক বছর আগে এই রানেইরির ওপর ক্লাবের সব দায়িত্ব ছেড়ে দেয়া হয়েছিল। ২০১৫ সালে লিস্টারে যোগ দেয়া ইতালিয়ান রানেইরি ওয়েবসাইটে এক বিবৃবিতে বলেছেন, ‘আমি সত্যিই গর্বিত। এখানে আসার পরে আমি কখনই এত বড় অর্জণ আশা করিনি। খেলোয়াড়রা ছিল দূর্দান্ত। তাদের লক্ষ্য, প্রতিশ্রুতি, স্পিরিটের কারনেই আজ এটা সম্ভব হয়েছে। প্রতিটি ম্যাচেই তারা একে অপরের জন্য লড়েছে যা আমাকে আনন্দিত করেছে। এই চ্যাম্পিয়নশীপ তাদের প্রাপ্য।
১৯২৯ সালে দ্বিতীয় স্থানে থেকে লিস্টার প্রিমিয়ার লীগ শেষ করেছিল। সেটাই ছিল ক্লাবের ইতিহাসে সর্বোচ্চ অর্জন। এছাড়া ২০০ সালে লীগ কাপে তারা শিরোপা জিতেছিল। লিস্টারের অধিনায়ক ওয়েস মরগ্যান বলেছেন, খেলোয়াড়দের মধ্যে এই ধরনের স্পিরিট আমি আগে কখনই দেখিনি। আমরা একেবারে একে অপরের ভাইয়ের মত সম্পর্ক গড়েছিলাম। শনিবারের জন্য অপেক্ষা আর শেষ হচ্ছেনা। ট্রফিটি তুলে ধরতে আমরা মুখিয়ে আছি।
লিস্টারের সাবেক স্ট্রাইকার গ্যারি লিনেকারও এই অর্জনকে অসম্ভব বলে আখ্যায়িত করেছেন। তিনি বলেন ক্লাবের ইতিহাসে এই ধরনের অর্জণ আমি কখনও চিন্তাও করিনি। এটা ভাষায় প্রকাশ করার মত না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here