SHARE
আগামী প্রজন্মকে স্কাউটিংয়ের মাধ্যমে দক্ষ মানবসম্পদে পরিণত করা সম্ভব
আগামী প্রজন্মকে স্কাউটিংয়ের মাধ্যমে দক্ষ মানবসম্পদে পরিণত করা সম্ভব

স্কাউটিং হল একটি আন্দোলন যার কাজ আনন্দের মধ্য দিয়ে শিক্ষা দান। এর মাধ্যমে একজন ছেলে বা মেয়ে সুনাগরিক হিসেবে গড়ে ওঠে। স্কাউটিং এর মধ্যে লুকিয়ে থাকে অপার আনন্দ যার স্বাদ নিতে হলে যোগদান করতে হবে এই আন্দোলনে। ১৯০৭ সালে রবার্ট স্টিফেন্সন স্মিথ লর্ড ব্যাডেন পাওয়েল অফ গিলওয়েল সংক্ষেপে বি.পি এই আন্দোলনের শুরু করেন।

বৃহস্পতিবার সকালে গোপালগঞ্জের মানিকদহ অবাসিক এলাকায় সপ্তাহব্যাপী ১১তম জাতীয় রোভার মুট উদ্বোধনকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন : তার সরকার স্কাউটিংয়ের মাধ্যমে ভবিষ্যত প্রজন্মকে দক্ষ মানবসম্পদ হিসেবে গড়ে তুলতে আরো টেকসই ও কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করবে।

আগামী প্রজন্মকে স্কাউটিংয়ের মাধ্যমে দক্ষ মানবসম্পদে পরিণত করা সম্ভব
আগামী প্রজন্মকে স্কাউটিংয়ের মাধ্যমে দক্ষ মানবসম্পদে পরিণত করা সম্ভব

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আগামী প্রজন্মকে স্কাউটিংয়ের মাধ্যমে দক্ষ মানবসম্পদে পরিণত করতে বাংলাদেশ স্কাউটসকে সার্বিক সহায়তাদানে আমাদের সরকার আরও কার্যকর ও টেকসই পদক্ষেপ গ্রহণ করবে।’

তিনি বলেন, ‘এ জন্য প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়, শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও সংশ্লিষ্ট সকলকে সমন্বিতভাবে বাংলাদেশ স্কাউটকে সহযোগিতা করার আহ্বান জানাচ্ছি। আমি আশা করি এই সহযোগিতা তারা করবেন।’

স্কাউটিংয়ের গুণগত মান অক্ষুণ্ণ রেখে এর সংখ্যা আরো বৃদ্ধির আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের ১৬ কোটি মানুষের দেশ। তাই আমাদের স্কাউটদের সংখ্যা আরো বৃদ্ধি করতে হবে।

তিনি বলেন, প্রত্যেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অন্তত, দু’টি করে কাব স্কাউট দল, দু’টি স্কাউট দল ও দু’টি রোভার স্কাউট দল চালু করতে হবে।

‘শান্তিময় জীবন, উন্নত দেশ’ শীর্ষক প্রতিপাদ্য নিয়ে শুরু হওয়া সপ্তাহব্যাপী এই রোভার মুটে সার্ক এবং এশীয় প্যাসিফিক অঞ্চলের বিভিন্ন দেশ থেকে আগত স্কাউটসহ প্রায় ১০ হাজার স্কাউট অংশ গ্রহণ করছেন।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী অনুষ্ঠানস্থলে পৌঁছলে বাংলাদেশ স্কাউটের সভাপতি এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক সমন্বয়য়ক মো. আবুল কালাম আজাদ এবং বাংলাদেশ স্কাউটসের জাতীয় কমিশনার মোজাম্মেল হক খান প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানান।

প্রধানমন্ত্রীকে বাংলাদেশ স্কাউটসের পক্ষ থেকে কুচকাওয়াজের মাধ্যমে অভিবাদন জানানো হয়। প্রধানমন্ত্রী কুচকাওয়াজের সালাম গ্রহণ করেন। স্কাউটদের পরিবেশনায় মনোজ্ঞ ডিসপ্লেও উপভোগ করেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্কাউটিংয়ে মেয়েদের সম্পৃক্ততা বৃদ্ধির আহ্বান জানিয়ে বলেন, স্কাউটিং কার্যক্রমে মেয়েদের অংশগ্রহণ আরো বৃদ্ধি করার লক্ষ্যে মেয়েদের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ও সহশিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মানসম্মত গার্ল-ইন- স্কাউটিং ইউনিট চালু করতে হবে।

অংশগ্রহণকারী স্কাউটদের ধন্যবাদ জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা চেয়েছিলেন ক্ষুধা-দারিদ্র্যমুক্ত সোনার বাংলাদেশ গড়ে তুলতে। ইনশাল্লাহ আমরা তা পারব। আর তোমরাই হবে জাতির পিতার সোনার বাংলাদেশ গড়ার সোনার সন্তান। যারা এই বাংলাদেশকে সোনার বাংলাদেশ হিসেবে গড়ে তুলবে।

 

Comments

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here